বিকাশ একাউন্ট খোলার উপায়

Photo of author

By admin

বর্তমান বিশ্বের সবথেকে জনপ্রিয় অ্যাপ হল বিকাশ অ্যাপ। কেননা এ বিকাশের মাধ্যমেই মানুষের কাছে লেনদেনের বিষয়টা অনেক সহজে এগিয়েছে। বিকাশ একাউন্ট নাই বর্তমানে এমন কোন লোক নেই। বিশ্বের প্রায় সকলের ফোনের কাছেই এই বিকাশ একাউন্ট খোলা আছে। বিকাশ একাউন্ট আপনারা যারা খুলেননি তাদের জন্য আমাদের আজকের এই পোস্টটি।

আমরা আপনাদেরকে বলে দিব যে কিভাবে খুব সহজে বিকাশ একাউন্ট খোলা যায়। এবং আপনারা কি কি ও পর্বলম্বন করলে ঘরে বসেই এই বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন। তারও কিছু তথ্য আপনাদেরকে দিয়ে দিব। যাতে করে আপনারা চাইলে যে কোন গ্রন্থা অবলম্বন করে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন। মজার ব্যাপার হল এটি খোলা একদম সহজ এবং সময়ও খুব কম লাগে। নিচে আমরা আপনাদেরকে বলে দিব বিকাশ একাউন্ট খুলতে কি কি জিনিসের প্রয়োজন হয়।

বিকাশ একাউন্ট খোলার উপায়

এখনকার সময় প্রায় সকল মানুষ বিকাশের একাউন্টটি চালিয়ে থাকে। তারা এই অ্যাপ জিনিসটি ব্যবহার করে শুধুমাত্র টাকা লেনদেনের জন্য। কেননা হঠাৎ করে যদি কেউ কোথাও চলে যায়। যদি তার কাছে হাতে কোন টাকা না থাকে তাহলে সে। যদি তার ফোনের মধ্যে বিকাশের একাউন্টটি থাকে তাহলে বাড়ির কাছ থেকে টাকা নিয়ে সে সাহায্য পেতে পারে। তাই বর্তমান বিশ্বে প্রায় সকল লোকই এফ বিকাশের একাউন্টটি খুলে ফেলেছি। তাই আজকে আপনাদের মধ্যে যারা এই একাউন্ট খুলতে পারেনা তাদের কিছু সিম্পল টিপস আজকে আপনাদেরকে বলে দেব। যাতে করে আপনারা খুব সহজেই একাউন্ট খুলে টাকা লেনদেন করতে পারেন।

বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম ২০২৩

সব থেকে এখন যে বিষয়টি বেশি দুনিয়াতে চলতেছে তা হল বিকাশ। কেননা এখনকার সময়ে কেউই ব্যাংকের তোয়াক্কা করে না। কারণ তারা চায় যে কিভাবে খুব সহজে টাকা ঘরে বসে লেনদেন করা যায়। তার কারণ হলো ব্যাংকে টাকা তুলতে গেলে লাইন ধরে থাকতে হয়। তাই সেই কথা ভেবে বিকাশের কোম্পানি এই সুন্দর একটি অ্যাপস তৈরি করেছে। যার মাধ্যমে খুব সহজে টাকা তোলা বা লেনদেন করা যায়।

  • এজেন্ট আপনার মোবাইল নাম্বার ও অপারেটর নিশ্চিত করে একাউন্ট খোলার জন্য অনুমতি নেবেন।
  • আপনার নাম্বারে পাঠানো রেফারেন্স নাম্বারটি নেবেন।
  • আপনার জাতীয় পরিচয়পত্রের সামনের ও পেছনের অংশের ছবি তুলবেন।
  • এজেন্ট ই-কেওয়াইসি এন্ট্রির জন্য আপনার একটি ছবি তুলবেন।
  • সফল রেজিস্ট্রেশন সম্পন্ন হলে আপনি একটি কনফার্মেশন এসএমএস পাবেন।

বিকাশ কি

অনেকের মধ্যে প্রশ্ন আছে যে বিকাশ কি। তাদের জন্য বলে দে এটি একটি টাকা লেনদেনের একটি মাধ্যম। যার মাধ্যমে অনায়াসে খুব নিরাপত্তায় টাকা লেনদেন করা যায়। এ বিকাশ অ্যাপ টি তৈরি করেছে দুটি ভাই যার নাম কামাল কাদির এবং ইকবাল কাদের। এই মাধ্যমটি তৈরি করেছে ২০০৯ সালে। সে সময় থেকেই শুরু হয়েছে বিকাশ এর কার্যক্রম। যার মাধ্যমে বাংলাদেশের মানুষ খুব সহজে টাকা আদান-প্রদান করতে পারতেছে।

বাটন মোবাইলে বিকাশ খোলার নিয়ম

বিকাশের একাউন্ট অনেকে আছে যারা বাটন মোবাইলে বিকাশ খোলার নিয়ম খুজতেছেন। তাদের জন্য আজকে বলে দিলাম যে কি কি উপায় আপনারা খুব সহজে বাটন মোবাইলেও বিকাশের একাউন্ট খুলতে পারবেন। আর সব থেকে মজার ব্যাপার হল আপনারা চাইলে বাটন মোবাইলে খুব সহজে বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারবেন। এর জন্য আপনাকে অবশ্যই এনআইডি কার্ড এবং কি আপনার সাথে থাকতে হবে। এ সকল পনথার মাধ্যমে আপনি চাইলে খুব সহজেই বিকাশের একাউন্ট বাটন ফোনে খুলতে পারবেন।

আরও পড়ুনঃ সকল সিমের নাম্বার দেখার কোড ২০২৩

জন্ম নিবন্ধন দিয়ে বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

এখনকার সময় অনেক মানুষ আছে যারা ছোট পোলাপান বাচ্চা। যাদের এখনো এনআইডি কার্ড হয়নি। তাই তাদের কথা চিন্তাভাবনা করে বিকাশের একাউন্টের লোকেরা জন্ম নিবন্ধন দিয়েও একাউন্ট খোলার উপায় তৈরি করেছি। তাই আপনারা যারা বিকাশের একাউন্ট খুলতে চান জন্ম নিবন্ধন দিয়ে তাদের জন্য কিছু টিপস নিসি দিয়ে দিলাম। যাতে করে আপনারা খুব সহজেই সেটিসগুলো ফলো করে একাউন্ট খুলতে পারেন।

Note: বিকাশের একাউন্ট চালাতে গেলে অবশ্যই বিকাশের পিন নাম্বার মনে রাখতে হবে।

অ্যাপ ছাড়া বিকাশ একাউন্ট খোলার নিয়ম

বর্তমানে সব থেকে বেশিরভাগ মানুষ এ্যাপের মাধ্যমেই বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারছেন। কিন্তু বেশিরভাগ মানুষ আছে যারা চায় যে অ্যাপের মাধ্যমে বিকাশের একাউন্ট খুলবে না। তাই তাদের জন্য আমরা আজকে কিছু টিপস নিচে দিয়ে দেবো যাতে করে তারা অ্যাপ ছাড়া বিকাশ একাউন্ট খুলতে পারে। তাই সম্পূর্ণ তথ্য পেতে আমাদের টিপস গুলো ফলো করুন।

  • মোবাইল ফোনের মাধ্যমে 
  • জাতীয় পরিচয়পত্র (ফটোকপি) / ড্রাইভিং লাইসেন্স (মূল এবং ফটোকপি) / পাসপোর্ট (মূল এবং ফটোকপি)
  • ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি লাগবে। 

বিকাশ পার্সোনাল একাউন্ট খোলার নিয়ম

অনেকে আছে যারা বিকাশের পার্সোনাল একাউন্ট খুলতে চায়। কারণ তারা টাকা পয়সার লেনদেন করার জন্য নিজের একাউন্ট থেকে টাকা পয়সা লেনদেন করতে চায়। তাই তাদের কথা ভেবে যারা পার্সোনাল ভাবে একাউন্ট খুলতে চান। তাদের জন্য কিছু টিপস নিচে দিয়ে দিলাম। যাতে করে আপনারা চাইলে খুব সহজেই নিজেদের ইচ্ছেমতো পার্সোনাল একাউন্ট খুলতে পারেন। এ সম্পর্কে কিছু টিপস নিচে দেওয়া হল।

  • মোবাইল ফোনের মাধ্যমে 
  • জাতীয় পরিচয়পত্র (মূল এবং ফটোকপি)/ মূল ড্রাইভিং লাইসেন্স / মূল পাসপোর্ট
  • ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি লাগবে।

বিকাশ এজেন্ট একাউন্ট খোলার নিয়ম

পৃথিবীতে অনেক মানুষই আছে যারা ফেক্সিলোডে কাজ করে। তাদের জন্য টাকা পয়সার লেনদেন করার জন্য একটি মাধ্যম বেছে নিয়ে এসেছে সেটা হল বিকাশটি। আর তারা তাদের একাউন্টে খুলেছে এজেন্ট একাউন্ট নামে। তাই আপনারা যারা উনাদের মত এজেন্ট একাউন্ট খুলতে চান তাদের জন্য কিছু টিপিসি দিয়ে দিলাম। যাতে করে আপনারাও আমাদের মত কম খরচে একাউন্ট খুলে টাকা পয়সা লেনদেন করতে পারেন।

  • মোবাইল ফোনের মাধ্যমে 
  • জাতীয় পরিচয় পত্র (মূল এবং ফটোকপি)
  • ১ কপি পাসপোর্ট সাইজ ছবি লাগবে। 

বিকাশ একাউন্ট চেক

এখনকার দিনে প্রায় সবার কাছেই স্মার্টফোন রয়েছে। কিন্তু আগেকার মানুষেরা বাটন ফোন ইউজ করতেই বেশি পছন্দ করে। তাদের জন্য অ্যাপ ছাড়া বিকাশ একাউন্ট চেক করার জন্য আমরা সুন্দর একটি মাধ্যম নিয়ে আসছি। যা কিনা আপনারা সহজেই আপনাদের বিকাশ একাউন্ট চেক করতে পারবেন। তার জন্য আপনাদের যে জিনিসটি সবচেয়ে বেশি গুরুত্বপূর্ণ তা আমরা নিচে দিয়ে দিব। বিকাশ একাউন্ট চেক করার জন্য এটি আপনাদের মনে রাখা অত্যন্ত গুরুত্বপূর্ণ। তাই আপনারা এই পিন নাম্বারটি দিয়ে আপনাদের বিকাশ অ্যাকাউন্ট থেকে মোবাইল রিচার্জ অথবা টাকা লেনদেন করতে পারবেন।

  • প্রথমে *২৪৭# ডায়াল করুন। 
  • এর পর আপনার জা প্রয়োজন সেইটি অপশন এ জান।
  • তারপর আপনাকে অই অপশন এ নিয়ে যাবে।
  • তারপর চেক করে নেন। 
পরিশেষে

আপনারা তো দেখলেন যে কিভাবে বিকাশের একাউন্ট খুলতে হয়। শুধু যে বিকাশের একাউন্ট খুললেই যে টাকা লেনদেন করা যাবে এমনটা নয়। তাই আপনাদের সবচেয়ে গুরুত্বপূর্ণ জিনিসটি হলো বিকাশের পিন নাম্বারটা মনে রাখতে হবে। আর তাই আমরা আমাদের এই পোস্টটিতে সকল তথ্য আপনাদের দিয়ে দিয়েছি। যদি আপনারা আমাদের এই তথ্যগুলো ভালোভাবে দেখেন তাহলে আপনারা ভালোভাবেই বিকাশের একাউন্ট খুলতে পারবেন। এবং কি টাকা লেনদেন করতে পারবেন খুব সহজেই।