মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন ফি ২০২৪। ট্যাক্স টোকেন সহ ৩০ হাজার টাকা

Photo of author

By admin

মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন ফি ২০২৪। ট্যাক্স টোকেন সহ ৩০ হাজার টাকা:- এ সম্পর্কে বিস্তারিত সকল তথ্য জানতে আমাদের আর্টিকেলটি সম্পন্ন ভালোভাবে পড়তে হবে। কারণ আমরা আপনাদেরকে জানিয়ে দিব যে আপনার মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন করার জন্য কি কি ধরনের তথ্য এবং কত টাকা লাগবে বা ফ্রি কত এ সম্পর্কিত সকল তথ্যগুলো জানিয়ে দিব। যাতে করে আপনাদের আর সেই মোটরসাইকেল কেনার সময় আর তথ্যগুলো তাদের কাছ থেকে জানতে হবে না। আপনারা চাইলে অনলাইনে মাধ্যমে দেখে সকল তথ্যগুলো পেয়ে যেতে পারে এবং সেই অনুযায়ী কাজ করতে পারবে।

বর্তমানে পুরো পৃথিবীতে হাজারো ধরনের মানুষ আছে যারা কিনা মোটরসাইকেল পছন্দ করে থাকে। এবং তারা মোটরসাইকেল ক্রয় করার সময় জানেনা যে মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন করতে হয় এবং এর টাকা কত করে। বর্তমানে অনেক মানুষ আছে যারা কিনা জানে এ সম্পর্কিত তথ্য গোনাগাতে কিছু মানুষ আছে যারা এ সম্পর্কে তথ্য জানেনা। তাই আপনাদেরকে বলে দেবো মোটরসাইকেল বা বাইক রেজিস্ট্রেশনের ফি কত ২০২৪ সালে। আপনারা যদি বাইকে কেনার পরে যদি রেজিস্ট্রেশন না করেন তাহলে কি কি ধরনের সমস্যা হবে তাও আপনাদেরকে জানিয়ে দিব।

বাংলাদেশে এখন অধিকাংশ মানুষ আছে যারা কিনা তাদের স্বপ্ন পূরণের জন্য একটি বাইক কিনে থাকে। এবং একটি ছেলে সব থেকে বড় স্বপ্ন হলো একটি। তাই অনেকে আছে যারা বাইক কিনে থাকে কিন্তু রেজিস্ট্রেশন করে না। তাদের পুলিশের কাছে বিভিন্ন সময় নানা ভোগান্তিতে পড়তে হয়। তাই আপনারা যারা মোটরসাইকেল বা বাইকটিতে রেজিস্ট্রেশন করতে চান তাদের ফ্রি সম্পর্কে সকল তথ্য আজকে আমাদের আর্টিকেলটিতে দিয়ে দিব।

মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন ফি ২০২৪

বাংলাদেশে এখন প্রায় বেশিরভাগ মানুষই আছে তারা তাদের স্বপ্ন পূরণের জন্য বাইক কিনে থাকে এবং বাইক রেজিস্ট্রেশন করে থাকে। কারণ তারা জানে যে বাইকে যদি রেজিস্ট্রেশন না করা হয় বা মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন যদি না করা হয় তাহলে নানা ধরনের সমস্যায় পড়তে হয়। তারা আর সেই বাহিকটি নিয়ে বাইরে বের হতে পারে না।

এখনকার সময়ে মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন করার জন্য একেক মোটরসাইকেলের স্টেশনের দাম একই রকম হয়ে থাকে। কারণ বর্তমানে বাইকগুলো বিভিন্ন ওজনের হয়ে থাকে এবং সেই সাথে রেজিস্ট্রেশন ফিউল আলাদা আলাদা হয়ে থাকে। বর্তমানে আপনারা হয়তো সকলেই জানেন যে মূলত মোটরসাইকেল স্টেশন ফি আগে করা হয়েছিল ১০১৫২ টাকা। কিন্তু ২০২৪ সালে এটা ২১৫ টাকা বেড়ে গিয়ে হয়েছে ১২ হাজার ২৫৭ টাকা।

মানুষ এখন অনেকে জানে যে মোটরসাইকেল স্টেশন করার জন্য কি কি ধরনের বা কত টাকা লাগবে। এর মধ্যে অনেকে আছে যারা জানে না যে বাইক রেজিস্ট্রেশনের ফি কত। তাই তাদের জন্য কিছু সম্পর্কিত তথ্য নিচে দিয়ে দিলাম এত তারা বুঝতে পারে যে কত টাকা হতে পারে বাইকের রেজিস্ট্রেশনের জন্য।

ট্যাক্স টোকেন সহ ৩০ হাজার টাকা

অনেকে আছে যারা কিনা বাইক কেনার পরে সেই বাইকের রেজিস্ট্রেশনের জন্য টাকা ব্যাংকে জমা দিয়ে থাকে। এবং সেখান থেকে তাকে জমা দেওয়ার রিসিভ দিয়ে দেয় আর সেটি হলো টেক্সট টোকেন। আর টেক্সট টোকেনসহ আপনার বাইক যেখান থেকে কিনবেন সেখানকার রেজিস্ট্রেশনের ফি সবমিলিয়ে দাম হল ত্রিশ হাজার টাকা। তাই আপনারা চাইলে যেখান থেকে করেন না কেন বর্তমানে আপনার বাইকের রেজিস্ট্রেশনের ফ্রি বা মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন এর জন্য আপনাকে প্রদান করতে হবে ত্রিশ হাজার টাকার মত।

বাইক রেজিষ্ট্রেশন ফি ২০২৪

বাইকের রেজিস্ট্রেশন দুই ভাবে হয়ে থাকে। দুই বছরের জন্য আর ১০ বছরের জন্য। অনেক মানুষ আছে যারা জানে যে দুই বছরের জন্য কত টাকা প্রয়োজন আর দশ বছরের জন্য কত টাকা প্রয়োজন। তাদের জন্য বলে রাখি যে কেউ যদি দুই বছরের জন্য রেজিস্ট্রেশন করে তাহলে তাকে দিতে হবে ১২ হাজার ২৫৭ টাকা। আর যদি কেউ 10 বছরের জন্য রেজিস্ট্রেশন করে তাহলে তাকে দিতে হবে ৩০ হাজার টাকা। আর দশ বছরের জন্য রেজিস্ট্রেশন করলে তাকে আর পরবর্তীতে রেজিস্ট্রেশন করা লাগবে না।

  • ২ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ১৫৭০৭ টাকা।
  • ১০ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ২৪৮৫৭ টাকা।

বাইক রেজিস্ট্রেশনের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র

এখন অনেক মানুষই আছে যারা কিনা জানে যে বাইক রেজিস্ট্রেশন করার জন্য কি কি ধরনের কাগজপত্র প্রয়োজন। আবার এর মধ্যে অনেক আছে যারা জানে না যে বাইক কেনার জন্য তাদের প্রয়োজনীয় কাগজপত্র গুলো কি কি লাগে। সকল লোকদের জন্য আজকে আমরা জানিয়ে দিব আমাদের এই আর্টিকেলটিতে। যে বাইকে রেজিস্ট্রেশন জন্য আপনার কি কি ধরনের প্রয়োজন কাগজপত্র লাগবে যেগুলো ছাড়া আপনি বাইক রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন না।

  •  ডিলার বা মালিককে যথাযথভাবে পূরণ করা স্বাক্ষর সহ নির্ধারিত আবেদন পত্র।
  • আপনি যে শোরুম থেকে বা ডিলার হতে বাইক ক্রয় করেছেন সেই বিলের কপি এবং এলসি কপি।
  •  বাইক আমদানির সকল কাগজপত্র।
  •  সেল সার্টিফিকেট বা বিক্রয় তথ্য বা বিক্রয় এর প্রমাণপত্র এর কপি।
  •  আমদানি কারকের ভ্যাট পরিশোধিত সোনালী ব্যাংকের ট্রেজারি চালানোর কপি।
  •  ভ্যাট এবং কাস্টমস অফিসের শুল্ক পরিশদের রশিদ।
  •  নির্ধারিত ভ্যাট এবং কাস্টম অফিস থেকে সত্যায়িত করা বডি শুল্ক এর চালান।
  •  বাইক ক্রয় করার ব্যক্তির জাতীয় পরিচয় পত্র কপি।
  •  বিদ্যুৎ বিল বা গ্যাস বিল এর কপি।
  •  পেশাদার বা অপেশাদার ড্রাইভিং লাইসেন্স।
  •  যদি আপনার লাইসেন্স না থাকলে লার্নার এর কপি।

বাইক ট্যাক্স টোকেন রিনিউ করার নিয়ম

অনেকে আছে যারা কিনা বাইকে রেজিস্ট্রেশন করার পর সেই রেজিস্ট্রেশনের মেয়াদ চলে যায়। তার কারণ হলো সে যে বাইকটির স্টেশন করে তার সময় চলে যাওয়ার পর তার যে টেক্সট টোকেনটি দিয়েছিল তার মেয়াদ ফুরিয়ে যায়। এজন্য তাকে আবার সেই টেক্সটকে নিয়ে রিনিউ করতে হয়।

এ রিনিউ করার জন্য তাকে অবশ্যই বিআরটিসি অফিসে যেতে হবে। সেখানে গিয়ে তাকে লাইনে দাঁড়িয়ে থেকে তার প্রয়োজনীয় তথ্যগুলো সেখানে সাবমিট করতে হবে তারপর আবার রেজিস্ট্রেশনে তারিখ দিবে। আর আপনাকে রেজিস্ট্রেশনের করার জন্য বা টেক্সটোকল ডিনার করার জন্য আপনাকে খরচ হবে ২৩৬০ টাকা। যেদিকে না আপনি ঘরে বসেও বিকাশের মাধ্যমে দিতে পারবেন।

১০০ সিসি বাইকের রেজিষ্ট্রেশন ফি কত

এখন আমরা আপনাদেরকে জানিয়ে দিব যে ১০০ সিসির বাইকের রেজিস্ট্রেশন ফ্রি র মূল্য কত টাকা। ১০০ সিসি বাইকের রেজিস্ট্রেশন ফির মূল্য ১২,২৫৭ টাকা। আর দুই বছরের জন্য টেক্সটোকেন সহ ১৫,৭০৭ টাকা নির্ধারণ করা হয়েছে। তাই আপনারা যারা এ সম্পর্কে তথ্যগুলো আগে থেকে জানতেন না আমরা তো আপনাদেরকে এখন দেখিয়ে দিলাম। তো আপনারা এভাবেই আপনার টাকাগুলো দিয়ে তার রেজিস্ট্রেশন করতে পারবেন।

  • ২ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ট্যাক্স টোকেন সহ ১৫৭০৭ টাকা।
  • ১০ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ২৪৮৫৭ টাকা।

১১০ সিসি মোটরসাইকেল রেজিস্ট্রেশন ফি কত

অনেক মানুষ আছে যারা অনেক রকমের বাইক পছন্দ করে থাকে। যেগুলোর সিসি আলাদা আলাদা রকমের হয়ে থাকে। এখন আমরা আপনাদেরকে জানিয়ে দিব ১১০ সিসি বাইকের রেজিস্ট্রেশন ফ্রি ১২,২৫৭ টাকা। আর আপনারা যদি ১০ বছরের নামে ট্যাক্স টোকেনসহ করতে চান তাহলে ২৪,৮৫৭ টাকা লাগবে। তো আপনারা যারা যারা এই বাইকের এসব ফি গুলো করতে চান দ্রুতই করে ফেলুন।

  • ২ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ট্যাক্স টোকেন সহ ১৫৭০৭ টাকা।
  • ১০ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ২৪৮৫৭ টাকা।

১২৫ সিসি বাইক রেজিস্ট্রেশন ফি ২০২৪

যুবকদের মধ্যে যারা মধ্যবিত্ত তারা ১২৫ সিসির বাইক গুলো কিনে থাকে। কেননা এই গাড়িগুলো অনেক টিকশো এবং কি মার্জিত হয়ে থাকে। এই বাইকগুলো রেজিস্ট্রেশন ফ্রি যারা জানেনা তাদের জন্য আমরা আজকে জানিয়ে দিব। ১২৫ সিসির বাইক রেজিস্ট্রেশন ফ্রি ১২,২৫৭ টাকা। তাই আপনারা যারা এই বাইকগুলো ডিসিশন ফ্রি করতে চান তারা দ্রুতই করে ফেলুন।

  • ২ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ট্যাক্স টোকেন সহ ১৫৭০৭ টাকা।
  • ১০ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ২৪৮৫৭ টাকা।

১৬০ সিসি বাইক রেজিস্ট্রেশন ফি ২০২৪

বাংলাদেশে এখন সব থেকে ভয়ানক গাড়ির মধ্যে যেগুলো রয়েছে সেগুলো হলো ১৬০ সিসির বাইক গুলো। কেননা এই বাইক গুলো অনেক ইয়াং পোলাপানরা নিয়ে থাকে। তারা শুধু ভাই কি কিনে থাকে কিন্তু রেজিস্ট্রেশন ফ্রি সম্পর্কে কোন তথ্য জানেনা। এই ১৬০ সিসি বাইকের রেজিস্ট্রেশন ফি ১২,২৫৭ টাকা দুই বছরের জন্য। আর দশ বছরের জন্য এই বাইকটির রেজিস্ট্রেশন ফ্রি হল ২৪,৮৫৭ টাকা।

  • ২ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ট্যাক্স টোকেন সহ ১৫৭০৭ টাকা।
  • ১০ বছর এর জন্য রেজিস্ট্রেশন এর দাম হল ২৪৮৫৭ টাকা।
পরিশেষে

এই ছিল আমাদের আজকের মোটরসাইকেলের রেজিস্ট্রেশনের ফি এবং এর যাবতীয় সকল তথ্যগুলো। আশা করছি আমরা আপনাদেরকে সকল ধরনের তথ্যগুলো দিতে পেরেছি মোটরসাইকেল বা বাইক সম্পর্কিত রেজিস্ট্রেশন নিয়ে। যদি আপনাদের এই আর্টিকেলটি ভালো লেগে থাকে তাহলে অন্যদেরকেও দেখার সুযোগ করে দিবেন। যাতে করে তারাও সকল ধরনের আপডেট এবং বাইকের রেজিস্ট্রেশনের সম্পর্কে তথ্য গুলো জানতে পারে। ধন্যবাদ আমাদের এই আর্টিকেলটি সম্পূর্ণ ভালো ভাবে পড়ার জন্য।